কিভাবে কনফিডেন্ট বাড়াবেন?

আত্মবিশ্বাস বা কনফিডেন্ট বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তা বলে বুঝানোর দরকার আছে বলে আমি মনে করি না। শুধু এটুকু বললেই হয়ত আপনার মনে পড়ে যাবে এই অসামান্য গুনটি কত দরকারি। আপনার চাকুরীর ইন্টারভিউতে চারপাঁচ জন যখন প্রশ্ন ছুঁড়ে দেয় আর জানা কথাটাও যখন মুখ দিয়ে বের হয়ে আসে না তখন বুঝতে পারা যায় কতটা আত্মবিশ্বাসী আপনি। কনফিডেন্ট লেভেল কতখানি।

জন্মসূত্রে কেউই কনফিডেন্ট  হয়ে পৃথিবীতে আসেন না। সবাই এখানে এসেই নিজেকে কনফিডেন্ট  করে তোলেন। সেক্ষেত্রে কিভাবে কনফিডেন্ট বাড়াবেন? সবাই কিভাবে বাড়ায়? কথা বলার সময় যদি কেউ কনফিডেন্ট না হতে পারে তবে সে হয় মন মরা টাইপের। তার সামাজিক আর্থিক আর সব দিকেই থাকে অবনতির মত ঘটনা। তাই আসুন জেনে নেই কিছু করনীয় যাতে নিজেকে আরো বেশি কনফিডেন্ট করে তোলা যেতে পারে।

কনফিডেন্ট বাড়ানোর জন্য অবশ্যই সবার আগে কনফিউশন ঝেড়ে ফেলে দিতে হবে। তারপরেও নিচের বিষয়গুলোতে নজর দেয়া যাক।

নিজেকে ভালবাসুনঃ পৃথিবীর মানুষ সবাই কিন্তু নিজেকেই ভালবাসে। তবু কেন বললাম নিজেকে ভালবাসুন? হ্যাঁ, ভালবাসার ধরন পাল্টান আর নিজেকেই বেশি ভালবাসুন। যে কেউ আপনাকে যে কোন সময় পন্য বানিয়ে দিতে পারে। কিন্তু একমাত্র আপনিই নিজেকে রক্ষা করেন এবং নিজেকে সবার কাছে তুলে ধরতে চান। তবে তাই করুন। আর সব ভুলে যান। দেখুন কিছুটা কনফিডেন্ট বেড়ে যাবে। আগে নিজের দিকটা দেখুন পরে অন্যেরটা দেখুন। মানুষের জন্য যা ই করুন মানুষ তার মূল্য নাও দিতে পারে।

নিজেকে ভালবাসার সময় অন্যকেও ভালবাসতে হয়। নইলে আপনি স্বার্থপর হিসেবে আখ্যায়িত হবেন।

আরো পড়ুন

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s